“বিতরণ ও সঞ্চালন ব্যবস্থাপনায় বেসরকারি উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগ সূষম উন্নয়নে সহায়তা করবে” - বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

“বিতরণ ও সঞ্চালন ব্যবস্থাপনায় বেসরকারি উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগ সূষম উন্নয়নে সহায়তা করবে” - বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা-১২.০৪.২০১৭

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, বিতরণ ও সঞ্চালন ব্যবস্থাপনায় বেসরকারি উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগ সূষম উন্নয়নে সহায়তা করবে। ৪৯% ভাগ বিদ্যুৎ বর্তমানে বেসরকারি খাত হতে উৎপাদন করা হয়। বেসলোড পাওয়ার সরকারি খাতে রেখে বাকী বিদ্যুৎ বেসরকারি খাত হতেই নেয়া হবে।

প্রতিমন্ত্রী, আজ বিদ্যুৎ ভবনে গাজীপুরের কড্ডায় নির্মাণাধীন ১৪৯ মেগাওয়াট আইপিপ, কড্ডা, গাজীপুর-সামিট এইস এ্যালায়েন্স পাওয়ার লিমিডেট বিদ্যুৎ কেন্দ্রটির জন্য সামিট পাওয়ারের সাথে বিপিডিবি-এর পাওয়ার পারচেস এগ্রিমেন্ট (পিপিএ) এবং বিদ্যুৎ বিভাগের সাথে ইমপ্লিমেন্টশন এগ্রিমেন্ট (আইএ) স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, বিদ্যুতের চহিদা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে। বেসরকারি খাত, উপ আঞ্চলিক সহযোগিতা প্রভৃতি উৎস হতে এ চাহিদা পূরণে সরকার তৎপর রয়েছে। সঞ্চালন ব্যবস্থায় বেসরকারি খাত আসলে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ আরো দ্রুততার সাথে দেয়া সম্ভব হবে। 

সামিট পাওয়ারের পক্ষে সামিট-এইস এ্যালায়েন্স পাওয়ার লিমিডেট-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশল মো. মোজাম্মেল হোসেন, বিপিডিবি-এর পক্ষে বোর্ড সচিব মিনা মাসুদ উজ্জামান, এবং বিদ্যুৎ বিভাগের পক্ষে যুগ্ন-সচিব (উন্নয়ন) শেখ ফয়েজুল আমিন চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। কড্ডাতে নির্মিতব্য ডুয়েল-ফুয়েল ভিত্তিক ১৪৯ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্রটির আগামী ১৫ মাসের মধ্যে নির্মাণ কাজ শেষ করা হবে। এইচএফও-তে উৎপাদিত প্রতি ইউনিট বিদ্যুৎ ৭.১৫ ঢাকা এবং  গ্যাসে উৎপাদিত প্রতি ইউনিট বিদ্যুৎ ২.৮০ টাকায় পিডিবি ক্রয় করবে। 

স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে বিদ্যুৎ সচিব ড. আহমদ কায়কাউস, বিপিডিবির চেয়ারম্যান প্রকৌশলী খালেদ মাহমুদ এবং সামিট গ্রুপের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আজিজ খান বক্তব্য রাখেন।