বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের সৌজন্য সাক্ষাৎ

ঢাকা-১৭.০৪.২০১৭

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদের সাথে বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা এস. বার্নিক্যাট (Marcia S. Bernicat) আজ সচিবালয়ে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন। এ সময় তারা পারস্পারিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। 

রাষ্ট্রদূত জানান, যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি ও বেসরকারি খাতের কোম্পানি সমূহ বাংলাদেশের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত সম্পর্কে আগ্রহ উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাচ্ছে। এক্সিলারেট, সানএডিসন, জিই ইত্যাদিসহ কয়েকটি কোম্পানি জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে কাজ করতে চাচ্ছে। বাংলাদেশের নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে যুক্তরাষ্ট্রের কাজ করার আগ্রহ আছে। এ সময় বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের বিভিন্ন ইস্যুতে ও যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান নিয়ে আলোচনা করা হয়।      

প্রতিমন্ত্রী, যুক্তরাষ্ট্রের আগ্রহকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, অন্যান্য দেশের তুলনায় বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে যুক্তরাষ্ট্রের বিনিয়োগ খুবই কম। বিপুল সম্ভাবনাময় এ খাতে যুক্তরাষ্ট্রের বিনিয়োগ বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়ার জন্য রাষ্ট্রদূতের সহযোগিতা কামনা করেন। প্রতিমন্ত্রী এ সময় বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের বর্তমান, ভবিষ্যৎ ও সম্ভাবনা রাষ্ট্রদূতকে অবহিত করে বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবসায়ি, চেম্বার অব কমার্সের প্রতিনিধিবৃন্দ বা সংশ্লিষ্ট কোম্পানিসমূহকে নিয়ে রোডসু বা সেমিনার করা যেতে পারে। প্রাথমিক জ্বালানি, সঞ্চালন, বিদ্যুৎ উৎপাদন বিনিয়োগের উৎকৃষ্ট খাত। এ সব খাতে আমেরিকান বিনিয়োগকে স্বাগত জানানো হবে। উপ-আঞ্চলিক সহযোগিতার মাধ্যমে ভারত থেকে বিদ্যুৎ পাওয়া যাচ্ছে; নেপাল ও ভুটান থেকে জলবিদ্যুৎ আমদানির বিষয়টি ইতিবাচকভাবে এগুচ্ছে। সরকারি ব্যবস্থাপনার অর্থাৎ জি-টু-জি ব্যবসা-বাণিজ্যকে আমরা উৎসাহিত করি। 

সাক্ষাৎকালে অন্যান্যের মাঝে পাওয়ার সেলের মহা পরিচালক মোহাম্মদ হোসেন উপিস্থিত ছিলেন।