“সম্ভাবনাময় বাংলাদেশের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ গড়ার কারিগর প্রযুক্তি নির্ভর আজকের এই তরুণ সমাজ” - বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

“সম্ভাবনাময় বাংলাদেশের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ গড়ার কারিগর প্রযুক্তি নির্ভর আজকের এই তরুণ সমাজ” - বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা-১৯.০৪.২০১৭

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, সম্ভাবনাময় বাংলাদেশের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ গড়ার কারিগর প্রযুক্তি নির্ভর আজকের এই তরুণ সমাজ। সুন্দর পরিবেশবান্ধব সোনার বাংলাদেশ হবে এ প্রজন্মের এই প্রতিশ্রুতিশীল তরুণদের হাত ধরেই। তারুণ্যের উদ্যমতায় দ্বীপ্ত হয়ে সকল সীমাবদ্ধতা মেধা, নতুন নতুন উদ্ভাবনী চিন্তা ও কৌশল দ্বারা অতিক্রম করে সোনার বাংলা গড়তে সমন্বিত প্রয়াস চালানো হবে। 

প্রতিমন্ত্রী, আজ ঢাকায় ‘পাওয়ার ও এনার্জি হ্যাকথন-২০১৭’-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ সব কথা বলেন। তিনি বলেন, সকল উন্নয়নের পিছনেই রয়েছে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি। তাই বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সাশ্রয়ি ব্যবহার ও সাশ্রয় সকলের জন্যই মঙ্গলজনক। গ্রামে,  মা ও শিশু মৃত্যু অন্যতম কারণ উন্মুক্ত পদ্ধতির গতানুগতিক রান্না, ধোঁয়াবিহীন বন্ধু চুলার ব্যবহার বাড়ানো প্রয়োজন। প্রতিমন্ত্রী বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সমুদ্রে প্রায় নতুন বাংলাদেশ অর্জন করেছি। এর সম্পদ আহরণ ও উত্তোলনে নতুন প্রজন্মের অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে।

আজকের এ হ্যাকাথনে- গৃহস্থালিতে কার্যকর জ্বালানি ও বিদ্যুৎ নিশ্চিত করা, মেরিন এনার্জি কার্যকর করা, শিল্পক্ষেত্রে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি শক্তির সংকট, বয়োমাস গ্যাস স্টোভ প্রতিস্থাপন, স্মার্ট গ্রিড টেকনোলজির বাস্তবায়ন, গ্রিন ও রিনিউয়েবর এনার্জির সমাধান, বিদ্যুতের সুলভ সংযোগ নিশ্চিতকরণ-এই ৭ (সাত) টি লক্ষ্য অর্জনের জন্য   প্রতিবন্ধকতাসমূহ প্রযুক্তি দিয়ে কিভাবে মোকাবেলা করা যেতে পারে তা দেশের তরুণ প্রকৌশলিরা উদ্ভাবন করবে। ৩৯০টি দলের মধ্যে নির্বাচিত ১৫০টি দল আজকে থেকে শুরু হওয়া একটানা ৩৬ ঘন্টা তাদের উদ্ভাবন গুলোর প্রোটোটাইপ তৈরি করবে এবং বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়, একাডেমী, ইন্ডাস্ট্রি থেকে ৪০ জনের বিশেষজ্ঞ দল ৭টি বিভাগের সেরা ২১ টি উদ্ভাবন খুঁজে বের করবেন। এই নির্বাচিত ২১টি উদ্ভাবন এর প্রোটোটাইপকে বাস্তবায়নে ও বাণিজ্যিকরণে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে মেন্টরশিপ, ফান্ডিং সহযোগিতা করা হবে।  

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ড. আহমদ কায়কাউস, পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসাইন, পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান আবুল মনসুর মোঃ ফয়েজুল্লাহ, বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মঈন উদ্দিন এবং বাংলাদেশ ইন্ডিপেন্ডেন্ট পাওয়ার প্রডিউসর এ্যাসেসিয়েশন এর সভাপতি লতিফ খান বক্তব্য রাখেন।