“সাশ্রয়ি মূল্যে বিদ্যুতের অন্যতম মাধ্যম কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র”-বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

“সাশ্রয়ি মূল্যে বিদ্যুতের অন্যতম মাধ্যম কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র”-বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা-১৩.০৭.২০১৭.

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, সাশ্রয়ি মূল্যে বিদ্যুতের অন্যতম মাধ্যম কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র। পাওয়ার সিষ্টেম মাস্টার প্ল্যান ২০১৬ অনুসারে জ্বালানি বহুমুখীকরণের উপর গুরুত্বারোপ করে ২০৩০ সালের মধ্যে মোট উৎপাদিত বিদ্যুতের ৩০% কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপনের মাধ্যমে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়েছে। এই আলোকে সরকারি ০৭টি, বেসরকারি ০৭টি, জয়েন্ট ভেঞ্চারে ০৮টি সহ মোট ২২টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র হতে ২০,০৫৭ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। ২০১৯ সাল হতে শুরু করে ২০২১ সালে এসব কেন্দ্র হতে বিদ্যুৎ আসা শুরু করবে।  

প্রতিমন্ত্রী, আজ পটুয়াখালিতে ১৩২০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন Ultra Super critical কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র বাস্তবায়নের উদ্দেশে China Energy Engineering Corporation Limited (Energy China) এবং  Ashuganj Power Station Company Ltd. (APSCL) -এর মধ্যে একটি MoU স্বাক্ষর  অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, শুধু কয়লায় নয় নবায়নযোগ্য জ্বালানিতেও আমরা এগুচ্ছি। সোলার পার্ক করাসহ সৌর বিদ্যুতের কার্যবলী এগিয়ে চলছে। স্রেডা নেট মিটারিং এর মাধ্যমে সোলার রূপটপ কাজে লাগিয়ে সৌর বিদ্যুৎ সম্প্রসারণের চেষ্টা করছে। এখন গ্রীডকে Stable ও Smart করার কাজ এগিয়ে চলছে। তিনি এসময় আশুগঞ্চ পাওয়ার স্টেশন কোম্পানি লিমিটেডকে দক্ষ আর্থিক ব্যবস্থাপনার উপর গুরুত্ব দিয়ে বলেন, এ কোম্পানিটি ফাইনানসিয়াল মার্কেট থেকে অর্থ সংগ্রহ করতে যাচ্ছে। তাই এদের মানষিকতা সেবা প্রদানের সাথে সাথে ব্যবসার দিকেও ধাবিত হতে হবে। 

বিদ্যুৎ বিভাগের নির্দেশনার আলোকে State-owned, China Energy Engineering Corporation Limited (Energy China) Ashuganj Power Station Company ltd. (APSCL) -এর সাথে Joint Venture Company  গঠনের মাধ্যমে সরকারীভাবে নির্ধারিত স্থান পটুয়াখালিতে ১৩২০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ Letter of Interest submit করে। Energy China অদ্যাবধি বিভিন্ন দেশে কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রসহ  ৬০ টি ১০০০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন থার্মাল পাওয়ার প্ল্যান্ট স্থাপন করেছে। একই সাথে State-owned Enterprise হিসেবে Overses Market-G Energy China বছরে প্রায় ০৮ বিলিয়ন ইউএসডি এনার্জি খাতে বিনিয়োগ করে। Energy China বাংলাদেশে বিদ্যুৎ খাতে ইতোমধ্যে দোহাজারী ও হাটহাজারীতে ১০০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন দুটি Peaking Power Plant, বিবিয়ানায় ৩৪৪ মেগাওয়াট সিসিপিপি, শাহজিবাজারে ৩৩০ মেগাওয়াট ও মেঘনাঘাটে ৩৩৭ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ইপিসি হিসেবে কাজ সম্পন্ন করেছে। বর্তমানে APSCL-এর বিদ্যুৎ উৎপদনের ক্ষমতা ১৮৭৬ মেগাওয়াট। 
APSCL এবং Energy China এর মধ্যে MoU-তে, এপিএসসিএল এর পক্ষে ব্যবস্থাপনা পরিচালক, এমএম সাজ্জাদুর রহমান এবং Energy China-এর পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক মি. ডং বিন (Mr. Dong Bin) স্বাক্ষর করেন। 

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে বিদ্যুৎ সচিব ড. আহমদ কায়কাউস, বিউবোর চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদসহ বিদ্যুৎ বিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।